মন

নারী, রক্তাক্ত(Women, bloody )by Mousumi Paul

My period baby picture.png

সম্ভবত গতবছর, নভেম্বর এর ঘটনা। কেরালার সবরিমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশ করতে না দেওয়ার বিরুদ্ধে কিছু মহিলা প্রতিবাদ করেন। একজন অধ্যক্ষ-এর মতামত ছিল যে কিছু মহিলা অনেক সময় ঋতুমতি থাকা অবস্থায় মন্দিরে প্রবেশ করে তাতে অপবিত্র হয় মন্দিরের পূণ্যভুমি। কে ঋতুমতী কে ঋতুমতী নয় , তা বোঝার জন্য এক বিশেষ যন্ত্র আবিষ্কারের উপায়ও বের করেছিলেন সেই অধ্যক্ষ এবং তারই প্রতিবাদে গোটা দেশের বিভিন্ন স্তরের মহিলারা #Happy to Bleed প্রচার শুরু করলেন। প্রতিক্রিয়া পুরুষদের থেকেও এসেছিল। কিন্ত আজ আমার মনে হচ্ছে এত প্রতিবাদ, এত উদ্যোগ এর পরও সমাজের বহু মানুষের মনে মেয়েদের মেনস্ট্রুয়াল হাইজিন নিয়ে অন্ধত্ব বিদ্যমান। তাহলে কী স্যানিটারি ন্যাপকিন এর Happy to Bleed প্রতিবাদ, এত মহিলার গর্জে ওঠা ঝঙ্কার সবই কী বৃথা!

শুরুতেই এসব কথা বলছি কারণ আজ আমরা অনেকটাই এগিয়ে।বহু মানুষ, শুধু নারীই নয় পুরুষরাও প্রতিবাদ করতে এগিয়ে এসেছেন ঋতুচক্রকে ঘিরে থাকা অন্যায় নিয়মের বিরুদ্ধে।কিন্তু কোথায়! সেই প্রতিবাদে কজন জাগছে? যদি জাগতই তাহলে কেন আজ আমার চোখের সামনে একটি অষ্টমশ্রেনির ছাত্রীর সাদা পোষাকে ঋতুচক্রের দাগ লাগায় অপমানিত হতে হল তাকে? কেন অপমানিত হতে হল আমাকেও ‘অসভ্য’ কথার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার জন্য?

ঋতুচক্র অন্যান্য শারীরিক ক্রিয়ার মতোই একটি সাধারণ শারীরিক ক্রিয়া। সেই বিষয়কেই যদি সমাজের লোক অপবিত্র বলে গন্য করেন তাহলে কী মানে দাঁড়ালো তিমি পল এর সেই অনন্য সাধারণ ছবি ‘মাই পিরিয়ড বেবি’-র? আর যে মানুষটিকে এই ঋতুচক্রের ফলে জামায় দাগ লাগার জন্য যারা অসভ্য বলে মনে করছেন তারা কী একবারও ভেবে দেখেছেন যে এই সমাজে মেয়েদের এই শারীরিক প্রক্রিয়াটি যদি না থাকত তাহলে আমি আপনি আমরা সবাই কীভাবে এই জায়গায় দাড়িয়ে থাকতাম ? কেন একটি মেয়েকে বাসে ট্রেনে প্রতিমুহূর্তে এই ঋতুচক্রের জন্য অপমানিত হতে হবে? কেন একটি মেয়ে ঋতুচক্রের জন্য মন্দিরে উঠতে পারবে না? আজ যদি জামাতে ঋতুচক্রের দাগ লাগায় শুনতে হয় মেয়েটি অসভ্য তাহলে তাকে যে সর্বসমক্ষে অপমানিত হতে হল সেটা বুঝি খুব সভ্য ব্যাপার!

 

আজ তেঘরিয়ার, লোকনাথ মন্দিরের মুখে একটি অষটম শ্রেনির ছাত্রীর সাদা স্কার্টে ঋতুচক্রের দাগ চোখে পড়ায় এক মহিলা তাকে ডেকে বলেন তুমি এত অসভ্য কেন! বড় হয়েছো নিজেকে ঢাকতে শেখোনি!ব্যাপারটা আমিও খেয়াল করি… মেয়েটি এমন অবস্থা বুঝতে না পারায় ফ্যালফ্যাল করে মহিলাটির দিকে তাকিয়েছিল। আমি মহিলাটির প্রায় চিৎকাররত মন্তব্য শুনে এগিয়ে আসি—

“কাকিমা আপনি যে ওকে বলছেন … তাহলে আপনার কী কখনই শাড়ি বা  জামাকাপড়ে দাগ লাগেনি! ও না হয় ছোটো তাই বুঝতে পারেনি যে দাগটা লেগেছে  কিন্তু আপনি তো শিক্ষিত মহিলা!আপনি কী করে এভাবে চিৎকার করে ওকে অসভ্য বলতে পারলেন ,তাহলে সেদিক দিয়ে দেখতে গেলে আপনিও তো অসভ্য।”

প্রতিবাদটা দরকার ছিল। কিন্তু জানিনা সে প্রতিবাদ কতটা মূল্য পেল! বলি কাকীমা মাসিমা যেই হন না কেন এভাবে কোন ঋতুমতি মেয়েকে আপনারা যে অসভ্য বলছেন, তাও নিজে একজন মেয়ে হয়ে, তাদের জামায় দাগ লাগলে যে তাদের নিয়ে হাসাহাসি করছেন , তাতে আপনারা কী ভাবছেন! যে একটা মেয়েকে এভাবে অপমান করে কিছু অশিক্ষিতসম জ্ঞান দিয়ে নারী জাতির স্থানটাকে আরো উপরে তুলে দিলেন বুঝি! তাহলে বলব নিজে ওই মেয়েটির জায়গায় এসে দাঁড়ান তবে বুঝবেন কৌতুকযন্ত্রনা সহ্য করার কষ্ট!

এনেক প্রতিবাদ আগেও হয়েছে মেন্সট্রুয়াল হাইজিন নিয়ে কিন্তু সমাজ কী এগোল? আজ তো ওই অষ্টম শ্রেনির মেয়েরটির পাশে এসে তো কেউ দাড়ালো না! আমি প্রতিবাদ করলাম বলে আমাকে শুনতে হল ‘মায়ের চেয়ে মাসির দরদ বেশি’। এই তাহলে সমাজ, এই তাহলে একটা নারীর প্রতি একটা নারীর সম্মান! একজন নারী হয়ে বলছি যে সমাজ একজন নারীকে অপমান করে,একজন নারীর পবিত্র শারীরিক প্রক্রিয়াকে অপবিত্র বলে সেই সমাজকে আমি যোগ্য মনে করি না। একজন ‘নারী’ হয়ে আমি গর্বিত, একটি নারী ‘ঋতুচক্র’ প্রক্রিয়ার জন্য আমি গর্বিত, ‘রক্তাক্ত’ হয়ে আমি গর্বিত।

মৌসুমী পাল। (তেঘরিয়া)

#Happy to Bleed…..

 

(provided into english)

Perhaps last year, the events of November. Some women protest against not allowing women to enter the Sarimala temple in Kerala. The opinion of an overseer was that some women often enter the temple while in the period of menstruation and are unclean in it, the path of the temple. The headmaster who had taken the method of inventing a particular instrument to understand who is not a menstruating period, and in protest, women from all over the country started the #Happy to Bleed campaign.The response came from men too. But today I feel so much protest, even after so many initiatives, many people of the society have blindness about menstrual hygiene.  So, what is the sanitary napkin’s Happy to Bleed protest?

In the beginning we are saying these things because today we are very much ahead. Many people, not just women, men have come forward to protest against the wrong rule surrounding the ritual chakra. But where! How many voices in the protest? If the world is so why should I have an upper class student’s face in front of my eyes to be insulted by wearing a veil of the season? Why to humiliate me to protest against the ‘savage’?

Severe menstrual cycle is a common physical activity similar to other physical functions. What does that mean if the people of the society are considered unclean, then what is the unique picture of ‘My Period Baby’ of whale Paul? And the person who seems to be barbaric to get the stain out of this season, did they once think that if the women did not have this physical process in this society then how could I all of us stand in this place?  Why should a girl be humiliated for this season on the bus train altogether?  Why a girl can not go to the temple for menstruation? If today the woman has heard the stains of the serpent, she is uncivilized, then it is very civilized to realize that she is to be humiliated publicly.

Today, Teghariya, in the front of Loknath temple, an eight-class student of the white skirt in the face of menstruation, a woman called her, why are you so savage?  I did not even learn to cover myself! I also noticed that … the girl did not understand the situation and looked at the woman by failing. I came forward to hear the woman’s almost shouting remarks-

“Aunty, why are you saying to her like this … do not you ever wear sari or clothes!  she is not too small to understand that she took the stain but you are a educated woman! How did you cry out in such a way that you could call her savage, if you can see it then you are too savage.

The protest was needed. But I do not know how much the protests got!  If you say that a woman is not a kind of aunt, why do you think that she is a savvy woman, she is a girl herself, and if she is wearing a scar on her face, what do you think? The woman who insulted a girl like this on the other hand, with some uneducated knowledge, gave up the position of women. Then you will come to the place of the girl, but understand the trouble of trying to cope with the trick!

The protests have already been done with menstrual   Hygiene but what is the society? Today, no one stood next to the eighth grade girl! As I protested, I had heard that ‘Auntie is more than mother’.If this is a society, then this is a woman’s respect for a woman! Being a woman, the society that insults a woman, does not think that the society is unclean because of a woman’s sacred physical process.  I’m proud of being a ‘woman’, I’m proud of the process of a woman ‘menstrual’, I’m proud of being ‘bloody’.

#Happy to Bleed….. #Happy to Bleed … ..

Mousumi Paul. (Teghoria)

 

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s